ডিনারে পাতে থাকুক পাও মিঠা

খোঁজখবর, ওয়েডেস্ক: অনেক সময়ে ফ্রিজে পাউরুটি বাড়তি হয়ে যায়, সেটা ফেলে দিয়ে নষ্ট না করে তা দিয়ে বানিয়ে ফেলুন সুস্বাদু মিষ্টি। ডিনারে যে তা বাড়তি মাত্রা দেবে তা বলাই বাহুল্য।

উপকরণ

পাউরুটি ৪ পিস, তরল দুধ ২ কাপ, কনডেন্স মিল্ক আধা কাপ, চিনি আধা কাপ, কাস্টার্ড পাউডার ২ চা চামচ, সয়াবিন তেল ৩ টেবিল চামচ, ঘি ২ চা চামচ, ভ্যানিলা অ্যাসেন্স কয়েক ফোঁটা, চেরি ও কিশমিশ সাজানোর জন্য।

যেভাবে তৈরি করবেন

১. পাউরুটির চারপাশের শক্ত অংশ ফেলে কোনাকুনিভাবে কেটে নিন।

২. পাত্রে তেল আর ঘি একসঙ্গে গরম করে পাউরুটির এপিঠ ওপিঠ লালচে করে ভেজে তুলুন।

৩. আরেকটি পাত্রে দুধ জ্বাল দিন। ফুটে উঠলে কনডেন্স মিল্ক ও চিনি দিন। কয়েক মিনিট পর কাস্টার্ড পাউডার গুলিয়ে দুধের মধ্যে দিয়ে নাড়তে থাকুন।

৪. ভ্যানিলা অ্যাসেন্স মিশিয়ে নামিয়ে রাখুন। পরিবেশন পাত্রে ভাজা পাউরুটি সাজিয়ে ওপরে জ্বাল দেওয়া দুধের মিশ্রণ কুসুম গরম থাকতে ঢেলে দিন।

৫. ওপরে চেরি আর কিশমিশ দিয়ে সাজিয়ে রেফ্রিজারেটরে রাখুন। ঠাণ্ডা হলে পরিবেশন করুন।

গরমে খান কাবুলি ছোলার সাল্যাড

খোঁজখবর, ওয়েডেস্ক প্রচণ্ড গরম পড়েছে আজকাল। এমন সময় দুপুরে বা রাতে মসলাদার ও ভারী কিছু না খাওয়াই ভালো। অন্যদিকে, যারা ওজন কমাতে আগ্রহী, তারাও কিন্তু চান একটু হালকা খাবার। কাবুলি ছোলার সাল্যাড ঠিক সেই রকমই একটি রেসিপি। এই খাবারটি পেট ভরাতে যেমন সক্ষম, তেমনই স্বাস্থ্যকর। ক্যালোরি বেশ কম, ফলে ডায়েট হবে ষোলআনা। অন্যদিকে খাওয়া যাবে ভাত বা রাইসের সঙ্গেও। গরমের দিনে পেট রাখবে ঠান্ডা, স্বস্তি দেবে।

উপকরণ

কাবুলি ছোলা সেদ্ধ করা ১ কাপ
শসা কিউব ১ কাপ
টম্যাটো কিউব ১ কাপ
পেঁয়াজ ছোট কিউব ২ টেবিল চামচ
ধনে পাতা মিহি কুচি ২ টেবিল চামচ
আদা মিহি কুচি ২ চা চামচ
লেবুর রস ২ টেবিল চামচ
ভাজা জিরে গুড়ো আধা চা চামচ
বিট লবণ আধা চা চামচ
প্রণালি

লেবুর রস, ভাজা জিরার গুঁড়ো, বিট লবণ ছাড়া উপরের সব উপকরণ একসঙ্গে মেখে নিন।
পরিবেশনের সময় লেবুর রস, ভাজা জিরের গুঁড়ো, বিট লবণ ছিটিয়ে পরিবেশন করুন এই ঠান্ডা সাল্যাড

ভিন্ন স্বাদের দুধ লাউ

খোঁজখবর, ওয়েবডেস্ক:  জিভে জল আনা একটি খাবার হলো দুধ লাউ। চালের আটার রুটি কিংবা ছিটারুটি দিয়ে এটি খেতে বেশ লাগে । গরমে শরীর সুস্থ রাখতে বা ভিন্ন ধরনের খাবার চেখে দেখতে হলে বানিয়ে ফেলতেই পারেন দুধ লাউ। চলুন রেসিপি জেনে নেওয়া যাক

উপকরণ: লাউ ১ টি। ঘি আধা কাপ। দুধ ১৫ কাপ। চিনি ১ কেজির (কম বা বেশি)। এলাচ ৫টি। দারুচিনি ৪ টুকরা।

প্রণালি: লাউয়ের খোসা ছাড়িয়ে নিন। ভেতরের নরম অংশ কেটে ফেলে দিয়ে গ্রেটারে একদম মিহি করে ঝুরি করে রাখুন। দুধ জ্বাল দিয়ে অর্ধেক করে ফেলুন। ঝুরি করা লাউ ১০ থেকে ১২ মিনিট সিদ্ধ করে নিন। জল ঝরিয়ে নিন। যে পাত্রে রান্না করবেন তাতে ঘি ঢেলে দিয়ে গরম করুন। এতে এলাচ, দারুচিনি আর জল নিংড়ানো লাউ ঢেলে দিয়ে দুই থেকে তিন মিনিট ভাজুন। এবার ফোটানো দুধ দিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন। লাউ আর দুধের মিশ্রণ ঘন হয়ে এলে অল্প অল্প করে চিনি দিন। চিনি দেয়া শেষ হলে নামিয়ে নেয়ার আগে একটু গোলাপ জল ছিটিয়ে নামিয়ে ঠান্ডা করে পরিবেশন করুন মজাদার দুধ লাউ।

চালতা দিয়ে মাছের ঝোল

খোঁজখবর, ওয়েবডেস্ক : মাছের ঝোল বাঙালির একটি ঐতিহ্যবাহী খাবার। মাছের ঝোলে যদি চালতার টক যোগ করা হয়, তাহলে তো কোনো কথাই নেই। চলুন, ঝটপট দেখে নিই চালতা দিয়ে মাছের ঝোল কীভাবে রান্না করবেন।

উপকরণ
১. বড় আকারের মাছ একটি
২. চালতা টুকরো করে কাটা এক কাপ
৩. পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ
৪. রসুন বাটা এক চা চামচ
৫. আদা বাটা এক চা চামচ
৬. জিরা বাটা দুই টেবিল চামচ
৭. হলুদ গুঁড়ো আধা চা চামচ
৮. মরিচ গুঁড়ো এক চা চামচ
৯. কাঁচালঙ্কা পাঁচটি
১০. তেল আধা কাপ
১১. টমেটো সস দুই টেবিল চামচ
১২. লবণ পরিমাণমতো

প্রস্তুত প্রণালি
মাছ পরিষ্কার করার পর কেটে টুকরাগুলোতে লবণ ও হলুদ মেখে অল্প তেলে ভেজে নিন। তেল গরম করে পেঁয়াজ ভেজে সব বাটা ও গুঁড়া মসলা কষিয়ে চালতা দিয়ে আরো কিছুক্ষণ কষিয়ে লবণ ও জল দিয়ে দিন। ঝোল কমে এলে টমেটো সস ও মাছ দিয়ে অল্প আঁচে রান্না করুন। কাঁচালঙ্কা দিয়ে কিছুক্ষণ রেখে নামাতে হবে।

নতুন বছরের প্রথম দিন ঘি দিয়ে মুরগির রোস্ট

খোঁজখবর, ওয়েবডেস্ক: বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিন পয়লা বৈশাখ। এইদিন বাঙালি জমিয়ে পেটপুজো করবেনা তাও কি হয় । তাই রইল ।ঘি দিয়ে মুরগির রোস্ট।

উপকরণ
6 পিস মাঝারি আকারের মুরগির পা
½ কাপ ভিনিগার
1 চাচামচ রসুনবাটা
1 চাচামচ আদাবাটা
½ চাচামচ নুন, স্বাদ অনুযায়ী কম-বেশি হতে পারে
2 কাপ ঘি
1 কাপ মুচমুচে করে ভাজা পেঁয়াজ
10-15 টি কিশমিশ
8-10 টি ছোট এলাচ
1 টেবিলচামচ পোস্ত
3 টি দারচিনির স্টিক, প্রতিটি এক ইঞ্চিমাপের
2 চাচামচ গোটা ধনে
½ চাচামচ জয়িত্রী
½ চাচামচ জায়ফল
1 কাপ দই
3-4 টি কাঁচালঙ্কা
1 টেবিলচামচ চিনি
1 টেবিলচামচ লেবুর রস
2 টেবিলচামচ গোলাপজল

পদ্ধতি
মুরগির টুকরোগুলি ধুয়ে মুছে জল ঝরিয়ে নিন।
ভিনিগার, নুন, আদাবাটা, রসুনবাটা মিশিয়ে একটা ম্যারিনেড তৈরি করে নিন।
চিকেন এই মিশ্রণে মাখিয়ে ম্যারিনেট করুন। কমপক্ষে আধ ঘণ্টা রাখতেই হবে, আরও একটু বেশি সময় দিলেও কোনও অসুবিধে নেই।
ভিনিগারের ম্যারিনেড থেকে মুরগির টুকরোগুলো তুলে নিন, ম্যারিনেডটাও আর কোনও কাজে লাগবে না।
এক কাপ ঘি বা তেল গরম করে নিন গভীর কোনও পাত্রে।
মাঝারি আঁচে মুরগির টুকরোগুলো ভেজে নিন লালচে করে।
অন্তত মিনিট দশেক সময় দিলে মাংসের সব ক’টা দিক লাল হয়ে যাবে। পুরো মাংসটা একসঙ্গে না ভেজে দফায় দফায় তেলে ছাড়ুন।
এলাচ, পোস্ত, দারচিনি, ধনে, জয়িত্রী, জায়ফল গ্রাইন্ডারে দিয়ে গুঁড়ো করে নিন।
দইয়ের মধ্যে এই মিশ্রণটা দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে সরিয়ে রাখুন।
মাংসের সব ক’টি পিস ভাজা হয়ে যাওয়ার পর বাকি ঘি ঢালুন কড়ায়।
তার মধ্যে ছেড়ে দিন অর্ধেক ভাজা পেঁয়াজ।
চিনি, লেবুর রস, গোলাপজল ছাড়া বাকি সব মশলা একসঙ্গে মিশিয়ে ছেড়ে দিন ঘিয়ের মধ্যে।
দু’-এক মিনিট ধরে কষুন।
মুরগির টুকরোগুলো এই প্যানে ছেড়ে দিয়ে ঢাকা দিয়ে রান্না করুন এর পর।
মাংস সেদ্ধ হয়ে এলে কাঁচালঙ্কা, চিনি, লেবুর রস, গোলাপজল যোগ করুন। মিনিট দুই-তিন এইভাবে রেখে দিতে হবে।
গ্রেভি থেকে ঘি ছাড়তে আরম্ভ করলে বাকি ভাজা পেঁয়াজটাও দিয়ে দিন।
খুব কম আঁচে চাপা দিয়ে আরও 10-15 মিনিট রাখুন।
নামিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম।

স্বাদ বদলাতে আনারসের রায়তা

খোঁজখবর, ওয়েবডেস্ক: বাজারে ইদানিং দেখা যাচ্ছে ছোট্ট ছোট্ট কিছু আনারস। এগুলো যেমন দামে সস্তা, তেমনি খেতেও দারুণ! কিন্তু আনারস শুধু শুধু না খেয়ে তা রান্নায় বা সালাডে  খেতে পারেন। আনারস দিয়ে তৈরি করতে পারেন সুস্বাদু টক-মিষ্টি রায়তা

উপকরণ

  • ১ কাপ আনারসের টুকরো
  • ১ টেবিল চামচ ধনেপাতা কুচি
  • ১ কাপ টকদই, ঠান্ডা ও ফেটিয়ে নেওয়া
  • ২ চা চামচ টালা জিরা গুঁড়ো
  • সিকি চা চামচ শুকনো লঙ্কা (ইচ্ছা)
  • ১ চা চামচ বিটলবণ
  • ২ চা চামচ চিনি
  • আধা চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো
  • আধা চা চামচ চটপটির মশলা
  • ওপরে দেওয়ার জন্য আরও কয়েক টুকরো আনারস, ধনেপাতা ও অল্প জিরা গুঁড়ো

প্রণালি

আনারসের কুচি, ধনেপাতা কুচি, দই, বিটলবণ, জিরা, চটপটির মশলা, চিনি, গোলমরিচ গুঁড়ো ও লঙ্কা  একসঙ্গে মাখিয়ে নিন একটি বড় বোলে। এরপর তা ছোট ছোট পাত্রে ঢালুন। ওপরে আনারস কুচি, ধনেপাতা ও সবশেষে অল্প জিরে  গুঁড়ো ছিটিয়ে দিন। পরিবেশন করতে পারেন গরম গরম পরোটা বা বিরিয়ানির সঙ্গে।

উপভোগ করুন নারকোল তক্তি

খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক ঃ নারকেল ১ টি, জল – ১/৪ কাপ চিনি ১ কাপ তাজা ক্রিম বা মালাই – ১/২ কাপ দুধ – ১/২ কাপ ঘি – ১ চা চামচ+ পাত্রের গায়ে লাগানোর জন্য কাজু বাদাম কুচি – ২ চা চামচ+ সাজানোর জন্য এলাচ গুঁড়ো – ১ চা চামচ ।

নারকেল ছোট টুকরো করে মিক্সারে দিতে হবে। ২। ১/৪ কাপ জল মিশিয়ে ভালো করে পিষে নিন। ৩। এবার প্যান গরম করে পেষানো নারকেল দিয়ে দিন। ৪। যতক্ষণ না নারকেল থেকে অতিরিক্ত জল বেড়িয়ে যাচ্ছে, ততক্ষণ নাড়াতে থাকুন। ৫। এরপর চিনি ঢেলে দিন। ৬। ভালো করে নাড়িয়ে ঢাকা দিয়ে দিন। ৭। ৫ মিনিট ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে, যাতে চিনির অতিরিক্ত জল শুকিয়ে যেতে পারে। তবে, মাঝে মাঝে ভালো করে নাড়িয়ে দিতে হবে। ৮। এবার তাজা ক্রিম বা মালাই যোগ করতে হবে। ৯। আবার ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে যতক্ষণ না নারকেল মিশ্রণটি একটু শুকিয়ে না যায়। ১০। শুকিয়ে এলে কাজুবাদাম কুচি এবং এলাচ গুঁড়ো ছড়িয়ে দিতে হবে। ১১। একটি থালায় ভালো করে ঘি মাখাতে হবে এবং রান্না করা নারকেল মিশ্রণটি ঢেলে দিতে হবে। ১২। এরপর হাত দিয়ে চাপ দিয়ে সমানভাবে থালার আকারে প্রসারিত করতে হবে। ১৩। ওপর থেকে কাজু ছড়িয়ে দিয়ে ১ ঘণ্টার জন্য ঠাণ্ডা করে রাখতে হবে। ১৪। ঠাণ্ডা হয়ে এলে বরফি আকারে কেটে পরিবেশন করতে হবে।

টক ঝাল মিরচি ভাজি

খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক ঃ  লঙ্কা- ৫ – ৬ টি জিরা গুঁড়ো – ১ চা চামচ ধনে গুঁড়ো – ১ চা চামচ নুন – স্বাদ মতো বেসন – ১ কাপ চালের গুঁড়ো – ২ টেবিল চামচ জিরা – ১ চা চামচ লঙ্কার গুঁড়ো – ২ চা চামচ ধনে পাতা কুঁচি – ১ চা চামচ+ ১/২ টেবিল চামচ তেল – ৪ টেবিল চামচ জল – ১ কাপের ১/২ ভাগ গাজর (কুচি করে রাখা) – ২ টেবিল চামচ লেবুর রস – ১/২ লেবুর রস

প্রনালী ঃ ১  বড় সাইজের বেশ কয়েকটা বেছে নিন। ২ এবার লম্বালম্বিভাবে চিরে নিন লঙ্কাগুলি।৩ একটি কাপে জিরা গুঁড়ো নিন। ৪. এবার ধনে গুঁড়ো এবং এক চা চামচের এক তৃতীয়াংশ চামচ নুন নিন। ৫. ভাল করে মেশান দুটি উপকরণ। ৬. এবার টুকরো করে রাখা লঙ্কার মধ্যে ঢুকিয়ে দিন এবং আলাদা করে রেখে দিন। ৭. একটি পাত্রে বেসন এবং চালের গুঁড়ো নিন। ৮. এবারে গোটা জিরে এবং লঙ্কার গুঁড়ো মেশান। ৯. প্রয়োজন মতো লবণ দিন। ১০. এবার ২ চা চামচ ধনেপাতা কুঁচি মেশান। ১১. একটি প্যানে এবার ৪ টেবিল চামচ তেল মেশান। ১২. ১ মিনিট তেলটা গরম করে মিশ্রণের ভিতর ঢেলে দিন। ১৩. এবার ভাল করে মেশান সবকটি উপকরণ। সঙ্গে অল্প অল্প জল মিশান যাতে একটি ঘন মিশ্রণ তৈরি হয়। ১৪. একটি প্যানে ভাজার জন্য তেল নিন। ১৫. লঙ্কাগুলি নিয়ে এই মিশ্রণের মধ্যে ডোবান এবং মিশ্রণটি ভাল করে লঙ্কার গায়ে মাখান। ১৬. এবার এক এক করে লঙ্কাগুলো গরম তেলে ভাজুন। ১৭. এক পিঠ হয়ে গেলে উল্টে অন্য পিঠ ভাজুন। ১৮. খয়েরি রং না হওয়া পর্যন্ত ভাজতে থাকুন লঙ্কাগুলি। ১৯. ভাজা হয়ে গেলে একটি পাত্রে সংগ্রহ করুন ভাজাগুলি এবং আলাদা করে সরিয়ে রাখুন। ২০. এবার একটি কাপে কুঁচিয়ে রাখা গাঁজর নিন। ২১. এক টেবিল চামচ ধনে গুঁড়ো এবং এক চিমটে নুন দিন। ভাল করে মেশান। ২২. এবার ভেজে রাখা একটি লঙ্কা নিয়ে সেটিকে লম্বালম্বিভাবে চিরে ফেলুন। ২৩. এবার লঙ্কার পেটে গাঁজর আর ধনে মিশ্রণ ঢুকিয়ে দিন। ২৪. অল্প করে লেবুর রস ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

বাড়িতেই বানান চিকেন টেংরি কাবাব

খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক ঃ

উপকরণ
৫০০ গ্রাম চিকেন ড্রামস্টিক
১ কাপ জল ঝরানো দই
১ চাচামচ আদাবাটা
১ চাচামচ রসুনবাটা
স্বাদ অনুযায়ী নুন
১ চাচামচ কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো
১ চাচামচ গরম মশলা
১ চাচামচ ধনেগুঁড়ো
১ চাচামচ কাঁচালঙ্কার কুচি
১ টেবিলচামচ ধনেপাতাকুচি
গার্নিশিংয়ের জন্য গোটা পেঁয়াজ, লেবুর টুকরো

 

পদ্ধতি:
ড্রামস্টিক বা মুরগির পায়ের টুকরোগুলিতে যাতে মশলা ভালোভাবে ঢোকে, তা নিশ্চিত করার জন্য মাংসের গায়ে ছুরি দিয়ে চিরে চিরে দিন, কাঁটা দিয়ে ফুটো করে দিলেও হবে৷
গার্নিশিংয়ের উপকরণ বাদ দিয়ে বাকি যা যা আছে, তার সব একটি পাত্রে মিশিয়ে নিন৷
এবার মুরগির টুকরোগুলি এর মধ্যে দিয়ে সারা রাত ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে৷
একটি আভেনপ্রুফ ডিশ নিন৷ তার উপর আর একটি আভেনপ্রুফ থালা উলটো করে রাখুন৷
এর উপর ড্রামস্টিকগুলো গোল করে সাজিয়ে নিন, মাংসের দিকটা যেন বাইরের দিকে থাকে৷
উপর থেকে ঢাকা দিয়ে ‘হাই’ পাওয়ারে পাঁচ মিনিট রান্না করুন, মাঝে একবার উলটে দিতে হবে৷
উলটে দেওয়ার পর ‘হাই’ পাওয়ারে ফের তিন মিনিট রান্না করুন৷
তার পর ঢাকা খুলে চড়া আঁচেই ফের ২ মিনিট রাখতে হবে৷
রান্না হয়ে গেলেই আভেন থেকে বের করে নেবেন না, আরও ৫ মিনিট রেখে দিন৷
পেঁয়াজ কেটে নিন গোল গোল করে, রিংয়ের মতো করে ছাড়িয়ে নেবেন৷
লেবুর টুকরো আর পেঁয়াজের রিংসহ কাবাব পরিবেশন করুন৷

ট্রাই করুন ক্রিসপি চিলি বেবি কর্ন

খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক ঃ
উপকরণ:
২৫০ গ্রাম বেবি কর্ন
১ ইঞ্চিমাপের আদাকুচি
৫-৬ কোয়া রসুনকুচি
২টো মাঝারি পেঁয়াজকুচি
১টা সেলেরি কুচি
১/২ কাপ স্প্রিং অনিয়নের কুচি
১ টেবিলচামচ লঙ্কাবাটা
১ টেবিলচামচ টোম্যাটো কেচাপ
১/৪ চাচামচ লাইট সোয়া সস
১/৪ কাপ ময়দা
১/৪ কাপ কর্নফ্লাওয়ার
১/২ কাপ তেল
নুন, চিনি স্বাদ অনুযায়ী
ব্রথ পাউডার, ভিনিগার আন্দাজমতো

পদ্ধতি
প্রতিটি বেবি কর্ন এমন আকারে কাটুন যা একবারে মুখে ঢোকানো যায়৷
ফুটন্ত জলে ৩০ সেকেন্ডের জন্য বেবি কর্ন ডুবিয়ে রেখে তার পর তুলে জল ঝরিয়ে নিন, ঠান্ডা করুন৷
কর্নফ্লাওয়ার আর ময়দাটা একসঙ্গে মিশিয়ে নিন৷
বেবি কর্নের টুকরোগুলি এই ময়দার মিশ্রণের উপর দিয়ে গড়িয়ে নিন একবার৷
খুব চড়া আঁচে মুচমুচে করে এই বেবি কর্নের টুকরোগুলি ভেজে তুলে নিন৷
ভালো স্টার ফ্রাই করা যায় এমন কোনও কড়া বা চাইনিজ় ওয়ক নিন৷
গরম করুন৷ তার পর ২ টেবিলচামচ তেল দিন৷
তেল গরম হলে আদা আর রসুনের কুচি দিয়ে ভাজতে আরম্ভ করুন৷
৩০ সেকেন্ড পর পেঁয়াজকুচি দিয়ে আরও এক মিনিট ভাজুন৷
নুন, গোলমরিচ, ভিনিগার, ব্রথ পাউডার দিন৷
খুব চড়া আঁচে নেড়েচেড়ে সবগুলি টস করুন৷
৩০ সেকেন্ড পর বেবি কর্ন দিয়ে লাইট সোয়া সস, লঙ্কাবাটা আর টোম্যাটো কেচাপটাও দিয়ে দিন৷
সেলেরিকুচি দিন৷
একেবারে শেষে স্প্রিং অনিয়ন দিয়ে নামিয়ে নিন৷
দু’টি সবজিই একটু কচকচে থাকলে খেতে ভালো লাগবে৷