কলকাতা বইমেলার সেরা আকর্ষণ বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে উপচে পড়া ভিড়

    0
    67

    কলকাতা বইমেলায় এখন উপচেপড়া ভিড়। এখনো বইপ্রেমীরা লাইন দিয়ে নামকরা বইয়ের স্টলে ঢুকছেন। মেলায় এখন হাঁটাই দায়। এবারের এই বইমেলার আকর্ষণের কেন্দ্রে রয়েছে বাংলাদেশের প্যাভিলিয়ন।বাংলাদেশের প্যাভিলিয়নটি গড়া হয়েছে ঢাকার আহসান মঞ্জিলের আদলে।

    ৩ হাজার ২০০ বর্গফুট জায়গা জুড়ে নির্মিত হয়েছে প্যাভিলিয়নটি। এখানেই ঠাঁই দেওয়া হয়েছে বাংলাদেশের ৪২টি সরকারি ও বেসরকারি প্রকাশনা সংস্থাকে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নে উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়। পরিসর কম হওয়ায় এখানে বইপ্রেমীদের বই দেখা ও কেনার সুযোগ থমকে যাচ্ছে। ৩ ফেব্রুয়ারি বইমেলায় আয়োজিত ‘বাংলাদেশ দিবস’ উদযাপনের দিন বাংলাদেশের সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর প্রধান অতিথির ভাষণে কলকাতা বইমেলা কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন রেখেছিলেন, আগামী দিনে বইমেলায় বাংলাদেশের প্যাভিলিয়নের পরিসর যেন বাড়ানো হয়। যাতে কলকাতার বইপ্রেমীরা বাংলাদেশের বই দেখা ও কেনার সুযোগ আরও একটু বেশি পান। কর্তৃপক্ষও বলেছে, বিষয়টি তারা নিশ্চয়ই বিবেচনা করবে।এদিন অবশ্য বইমেলা কর্তৃপক্ষ এ কথাও জানিয়ে দিয়েছে, আগামী ২০২০ সালের বইমেলার থিম কান্ট্রি হবে বাংলাদেশ। বইমেলায় অবশ্য এর আগে দুবার ১৯৯৭ এবং ২০১৩ সালে থিম কান্ট্রি করা হয়েছিল বাংলাদেশকে। ১১ ফেব্রুয়ারি কলকাতা বইমেলা শেষ হবে। শুরু হয়েছিল ৩০ জানুয়ারি। উদ্বোধন করেছিলেন প্রখ্যাত চলচ্চিত্র ও নাট্যব্যক্তিত্ব সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। বইমেলায় গিয়ে কথা হয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘর প্রকাশনা, জাতীয় সাহিত্য প্রকাশ, বাংলা একাডেমি, শিশু একাডেমী, নজরুল ইনস্টিটিউট, বাংলা প্রকাশ, অবসর প্রকাশন, অনন্যা, পাঠক সমাবেশ, বিজয় ডিজিটাল, সিসটেক পাবলিকেশনস, ভাষাচিত্র, চলচ্চিত্র প্রকাশনা অধিদপ্তর, ইসলামিক ফাউন্ডেশন, আগামী, মদীনা পাবলিকেশনস, কথা প্রকাশ, পাঞ্জেরী পাবলিকেশনস, দ্য ইউনিভার্সিটি প্রেস লিমিটেডের (ইউপিএল) কর্মকর্তাদের সঙ্গে। প্রকাশকদের প্রতিক্রিয়া মিশ্র। কেউ বলেছেন, গত বছরের তুলনায় এবারের বিক্রি ততটা বেশি নয়, আবার কেউ বলেছেন বিক্রি ভালোই হচ্ছে। তবে সবাই একবাক্যে বলেছেন, প্রচণ্ড ভিড় হয়েছে এবার। বাংলা একাডেমির সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানালেন, এবারও তাঁদের বেশি বিক্রি হয়েছে বিভিন্ন অভিধান। সিসটেক বলেছে, বাংলায় কম্পিউটারের বই ভালোই বিক্রি হয়েছে তাদের। বিজয় ডিজিটালের এক কর্মী বললেন, ‘আমাদের বাংলা সফটওয়্যার কিনেছে।’
    এবারের বইমেলায় বাংলাদেশ থেকে যোগ দিয়েছে ৪২টি প্রকাশনা সংস্থা।

    LEAVE A REPLY