যন্ত্রণার দ্রুত উপসম চান বাংলাদেশের বৃক্ষ মানব !

খোঁজখবর, ওয়েবডেস্ক : হাত-পায়ের আঙুলের অগ্রভাগ দেখতে অনেকটা গাছের শিকড় বা ডালপালার মতো। শরীরে আছে আঁচিলের চিহ্ন। হাত-পায়ের আঁচিল থেকেই ক্রমে বৃক্ষ শিকড়সদৃশ অবস্থার সৃষ্টি। বিরল এই রোগে আক্রান্ত খুলনার আবুল বাজেদার। চিকিৎসকরা এই রোগকে ট্রি-ম্যান হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। তারা বলেছেন, এই রোগী বাংলাদেশে বিরল। চিকিৎসা শাস্ত্রে যাকে বলে ইপিডেরম্যাল হাইপারকেরাটোসিস (Epidermal Hyperkeratosis or Epidermodysplasia Verruciformis)। রোগী হিসেবে বিশ্বে আবুল তৃতীয় বলে জানিয়েছেন চিকিসৎসকরা।
খুলনার পাইকগাছার বাতিখালী গ্রামের মানিক বাজেদারের ছেলে তিনি। আট ভাই-বোনের মধ্যে ষষ্ঠ। ঘরে রয়েছে তাহেরা নামে এক কন্যাসন্তান। আবুলের জীবন জন্ম থেকেই এরকম ছিল না। ১০ বছর বয়স থেকে শরীরে অদ্ভুত ধরনের আঁচিল বেরতে শুরু করে। কিন্তু, কয়েকদিন পরে হাতেও বের হয় আঁচিলগুলি। প্রথমে তাঁকে বাড়িতেই হোমিওপ্যাথি ওষুধ খাওয়ানো হয়। পরে আঁচিলগুলো বাড়তে থাকলে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। সবকিছু খতিয়ে দেখে কিছু ওষুধ দেন তিনি। কিন্তু, এরপর আবুলের হাতের আঙুল দিয়ে কবজি পর্যন্ত এবং পায়ের আঙুল থেকে হাঁটু পর্যন্ত গাছের শেকড়ের মতো বের হতে থাকে। তখন থেকে তাঁর কাজ করাও বন্ধ হয়ে যায়। খাবারও খেতে হত অন্যদের সাহায্য নিয়ে।

বাধ্য হয়ে ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে এসে অপারেশন করানো হয় তাঁকে। তারপর থেকে ২৮ বছর বয়সী আবুলের শরীরে মোট ২৫টি অপারেশন হয়েছে। কিন্তু, কোনও লাভ হয়নি। এই রোগের চিকিৎসার জন্য ভারতে এসেও কোনও লাভ হয়নি বলে জানান তিনি। শেষবার অপারেশনের পর তাঁর সমস্যার সমাধান হয়েছে বলে দাবি করেছিলেন চিকিৎসকরা। কিন্তু, গত মে মাসে ফের হাসপাতালে ভরতি করা হয় তাঁকে। বর্তমানে পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়েছে শরীরের। তাই নিজের হাত কেটে যন্ত্রণার উপশম করতে চান এক কন্যাসন্তানের পিতা আবুল।