রায়গঞ্জ ঘড়ি মোড়ে পথ অবরোধ, নিগৃহীত মহকুমা শাসক

    0
    82

    নিখোঁজ প্রিসাইডিং অফিসার  রাজকুমার রায়ের রহস্যজনক ভাবে মৃত্যুর ঘটনায় বিচার চেয়ে অবরোধ ভোটকর্মীদের

    তপন চক্রবর্তী , উত্তর দিনাজপুর : মঙ্গলবার রাতে রায়গঞ্জের সোনাডাঙি এলাকায় রেললাইনের ধারে ভোট কর্মীর ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ উদ্ধার হলে রায়গঞ্জের ভোট কর্মীরা রায়গঞ্জ শহরের ঘড়ি মোড়ে পথ অবরোধ করে।জানা যায়  ওই মৃতদেহটি রায়গঞ্জ শহরের বাসিন্দা রহটপুর হাই মাদ্রাসার শিক্ষক রাজকুমার রায়ের।, যিনি ইটাহারে প্রিসাইডিং অফিসার হিসেবে ভোটগ্রহন করার কাজে গিয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেননি । এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুরে। গত ১৪ মে পঞ্চায়েত নির্বাচনের ভোটগ্রহন করতে ইটাহার ব্লকের সোনাপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৪৮ নম্বর বুথের প্রিসাইডিং অফিসার হিসেবে যোগ দেন রায়গঞ্জ শহরের সুদর্শনপুর এলাকার বাসিন্দা করনদিঘীর রহটপুর হাই মাদ্রাসার ইংরেজিরর শিক্ষক রাজকুমার রায়। ভোটগ্রহনের দিন রাত আটটা থেকেই তার আর কোনও খোঁজ মেলেনি। নিখোঁজ ওই প্রিসাইডিং অফিসারের ক্ষতবিক্ষত মৃতদেহ মিলল রায়গঞ্জের সোনাডাঙি এলাকার রেললাইনের ধারে।এই ঘটনায় ভোট কর্মীরা সকাল থেকে রায়গঞ্জের ঘড়ি মোড়ে পথ অবরোধ শুরু করে।তাদের দাবি যতক্ষন পর্যন্ত ভোট কর্মীদের জন্য পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা না করা হবে তারা কোন ভাবেই ভোট গণনার কাজে যাবেন না।এই পথ অবরোধের ঘটনার কথা জানতে পেরে রায়গঞ্জের মহকুমা শাসক টি এন শেরপা পথ অবরোধ কারীদের সাথে কথা বলতে এলে ভোট কর্মীদের মধ্য থেকে মহকুমা শাসককে লক্ষ করে জুতা ছোরার সাথে সাথে গায়ে জল ঢেলে দিলে মহকুমা শাসককে কোনভাবে অবরোধ কারীদের মধ্য থেকে তাকে পুলিশ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নিকিতা ফনিংয়ের সামনেই এসডিওকে নিগৃহিত হতে হল। রাজকুমার রায় নামে এক প্রিসাইডিং অফিসারের মৃত্যুতে রায়গঞ্জের ঘড়ি মোড়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন কয়েকশ ভোট কর্মী। তাদের দাবি, ওই প্রিসাইডিং অফিসারকে বুথ থেকে অপহরণ করে নিয়ে গিয়ে খুন করা হল কেন তার জবাব দিতে হবে। সেই বিক্ষোভ চলাকালীন হঠাৎ উত্তেজিত হয়ে মহকুমা শাসকের উপরে ঝাঁপিয়ে পড়েন ক্ষুব্ধ ভোটকর্মীরা।পথ অবরোধ এখন ও চলছে বলে জানা যায়।

    LEAVE A REPLY