অবিরাম বৃষ্টির জেরে কপালে ভাঁজ কুমোরটুলির মৃৎশিল্পীদের

দক্ষিন দিনাজপুরঃ পুজোর আর মাত্র ২৮ দিন বাকি। কিন্তু চরম ব্যস্ততার এই সময়েই ছন্দ হারিয়েছে কুমোরটুলি। দফায় দফায় বৃষ্টির রোজনামচায় কপালে ভাঁজ বাড়ছে শিল্পীদের। আশঙ্কা একটাই, এভাবে চললে কি বোধনের আগে আদৌ শেষ হবে প্রতিমার রূপটান?  দফায় দফায় বৃষ্টির রোজনামচায় কপালে ভাঁজ বাড়ছে শিল্পীদের। আশঙ্কা একটাই, এভাবে চললে কি বোধনের আগে আদৌ শেষ হবে প্রতিমার রূপটান? হাতে আর মাত্র ২৮ দিন। খড়ের কাঠামোর গায়ে এখন মাটি লেপার কাজ চলার কথা পুরোদমে।কিন্তু কুমোরটুলি মুখ লুকিয়েছে ত্রিপল আর প্লাস্টিকের ঘোমটায়। শ্রাবণের অঝোর ধারাপাতে যখন তখন লাটে উঠছে কাজ। মাটি আর অসম্পূর্ণ কাঠামো কোনওরকমে ঢেকে অস্বস্তির অবসর কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন শিল্পীরা,ত্রিপল চুঁইয়ে পড়া জলে কখনও গলেও যাচ্ছে প্রতিমার মাটির প্রলেপ। চোখের সামনে সেসব দেখেও শিল্পীরা অসহায় বলে এমন টা জানালেন দক্ষিন দিনাজপুর জেলার বুনিয়াদপুর পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের মৃৎশিল্পী জয় পাল।
আবহাওয়ার পূর্বাভাস, এবার দীর্ঘায়িত হবে বর্ষা। বৃষ্টি চলতে পারে আরও বেশ কিছুদিন। হাওয়াবিদদের এই ঘোষণায় রক্তচাপ আরও বাড়ছে শিল্পীদের। মাটি লাগানোর কাজেরই এখন দফারফা। এভাবে চললে রঙ করার পাট চুকিয়ে প্রতিমার ডেলিভারি দেওয়া নিয়ে ঘোর আশঙ্কায় শিল্পীমহল।