এটিএম হ্যাকিং কান্ডে পুলিশি তদন্তে নয়া তথ্য

এটিএম হ্যাকিং কান্ডে পুলিশি তদন্তে উঠে এল নয়া তথ্য। গত কয়েকদিন আগেই অন্ডাল থানার একটি এটিএম হ্যাকিং মামলায় রানীগঞ্জের নিমচা ফাঁড়ি এলাকা থেকে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। এবার তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেই নতুন তথ্য হাতে পেল পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হল আরও তিনজনকে। রবিবার রাতে চন্দন প্রসাদ, অজয় মাহাত ও গৌরি শঙ্কর নামে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। চন্দন মাহাত জেকে নগর নগর কোলিয়ারি এলাকায় থাকে।অজয় মাহাত রানীগঞ্জের বেলিয়াবাথান এলাকার বাসিন্দা। আসানসোলের মহিশীলার বাসিন্দা গৌরি শঙ্কর। ধৃতদের কাছ থেকে প্রচুর ভুয়ো আধারকার্ড, সিমকার্ড, টিভি, ল্যাপটপ আটক করেছে পুলিশ। তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে এই চক্রটি ভুয়ো নথি দিয়ে সিমকার্ড তুলে, সেই ফোন থেকে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের গ্রাহককে ফোন করত। তাদের এটিএমের তথ্য জেনে নিয়ে অনলাইনে শপিং করত। পরে আবার সেই অনলাইনে কেনা জিনিসপত্র বিক্রি করে নগদ টাকায় রুপান্তরিত করা হত। মুলত গ্রেপ্তার হওয়া তিনজন এই কাজেই যুক্ত। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও তথ্য মিলবে বলে পুলিশ মনে করছে। পুলিশের অনুমান আরও বেশ কিছু ব্যাক্তি এই চক্রের সাথে যুক্ত। তাদের সন্ধান করছে পুলিশ। ধৃতদের রাতেই অন্ডাল থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।