এবার সড়কের ধারের বাণিজ্যিক হোর্ডিং থেকে কর নেবে পূর্ত দপ্তর

নিজেদের নিয়ন্ত্রণে থাকা সড়কের ধারে থাকা বানিকঝিক হোডিং থেকে এবার কর আদায় করবে পূর্ত দপ্তর।  মূলত দপ্তরের আয়  বাড়ানোর লক্ষ্যেই এই সিদ্ধাথ নেওয়া হয়েছে। তাদের নিয়ন্ত্রণে এই মুহূর্তে ১৮ টি  রাজ্য সড়ক ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে বিভিন্ন জেলার প্রায় ৮০০০ কিলোমিটার গ্রামীণ সড়ক।  পাশাপাশি এ রাজ্যে প্রায় ৩০০০ কিলোমিটার জাতীয় সড়কের দেখভাল করে পূর্ত দপ্তর। প্রথম পর্যায়ে আপাতত রাজ্যসড়কের ধারে  থাকা বানিকজিক হোডিং থেকেই কর আদায় করার পরিকল্পনা নিয়েছে পূর্ত দফ্তর। এতদিন পূর্ত দপ্তর  এবং পূর্ত (সড়ক) দপ্প্তরের   নিয়ন্ত্রণে থাকা সড়কগুলির ধারে যে সমস্ত বানিকজিক হোডিং টাঙানো হত ,তার জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থানকে খুবই সামান্য অর্থ মেটাতে হত স্থানীয় পুরসভা কিংবা পঞ্চায়েতকে।পূর্ত দপ্তরের  এই নতুন নিয়ম লাগু হলে , বিজ্ঞাপন সংস্থাগুলিকে সরকার নিধারিত হারে হোডিং বাবদ কর দিতে হবে। বানিকজিক হোডিং থেকে বছরে প্রায় ৫০ কোটি টাকা আয় করে কলকাতা পুরসভা।  অনেকটা সেই আদলেই সড়কের ধারের হোডিংয়ের নিয়ন্ত্রন  নিতে চাওয়া হচ্ছে বলে ওই সূত্রটি জানিয়েছে। গত সোমবার (২৮ আগস্ট ) নবান্নে হোডিং সংক্রান্ত একটি জরুরি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।দপ্তরের  নিয়ন্ত্রণে যতগুলি সড়ক রয়েছে গোটা রাজ্যে ,তার ধারে থাকা হোডিংগুলির সম্পৰ্কে দ্রুত রিপোর্ট পাঠাতে বলা হয়েছে নবান্নে। সেই হিসাব এবার মিলবে। অবৈধভাবে থাকা হোডিংয়ের বিষয়ে ও সমস্ত হিসাব আসার পরই বিজ্ঞপনদাতাদের জন্য এলাকাভিত্তিক হোডিং টাঙানোর বিষয়ে টেন্ডার ডাকা হবে। আগামী সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যেই গোটা প্রক্রিয়া শেষ করে হোডিং থেকে কর আদায় চালু করবে পূর্ত দপ্তররের ।