নদী পুকুরের লোনা জলকে পানযোগ্য করার নয়া প্রকল্প রাজ্যের

    0
    35

    খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক ঃ লোনা জলের এলাকা তথা সুন্দরবন অঞ্চলের মানুষের জন্য লোনা জলকে মিষ্টি করার নতুন প্রকল্প রাজ্য সরকার। অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করার জন্য ইজরায়েল থেকে মেশিন আনানো হবে। হাসনাবাদের ইছামতী নদীতে প্রায় ১০৮ কোটি খরচ করে এই প্রকল্প তৈরী করবে রাজ্যের জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দপ্তর। পাশাপাশি সুন্দরবন অঞ্চলের পুকুরের লোনা জলকেও মিষ্টি করার জন্য পাইলট প্রোজেক্ট নিয়েছে সরকার। এজন্য জার্মানি থেকে অত্যাধুনিক মেশিন আনানো হয়েছে।

    জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দপ্তর সূত্রে জানানো হয়েছে ভূগর্ভস্থ পানীয় জ্বলে আর্সেনিক ও ফ্লোরাইড থাকার সম্ভাবনা থাকে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় আর্সেনিকের পরিমাণও মারাত্বক। বিকল্প পানীয় জল সরবরাহ করার জন্য গঙ্গা থেকে জল তুলে পরিস্রুত করে ব্যবহার শুরু হয়েছে অনেক আগেই। কিন্তু, সুন্দরবন অঞ্চলের নদীগুলিতে লোনার পরিমাণ প্রায় ৪২-৪৫ শতাংশ। তাই, ওইভাবে পরিস্রুত করা সম্ভব হয় নি।

    হাসনাবাদ জেলায় ওই নতুন প্রকল্পের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইলেকট্রিক মোটরেই এই প্রকল্প চালানো হবে। নদীর জলের পাশাপাশি সুন্দরবন অঞ্চলের পুকুরের জলকেও মিষ্টি ও পরিস্রুত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একটি বড় প্রকল্পের থেকে অনেক কম টাকা খরচ করে ছোট ছোট এলাকার জন্য এই নতুন ধরনের প্রকল্প তৈরী করা হবে।

    সম্প্রতি সুন্দরবন অঞ্চলের হিঙ্গলগঞ্জের চাড়ালখালি এলাকায় স্থানীয় একটি পুকুরে জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দপ্তর পাইলট প্রোজেক্ট করেছে। জারামানি থেকে মেশিন আনালেও যেহেতু এটি ছোট প্রকল্প, তাই, খরচ হয়েছে ৪৪ লক্ষ টাকা। এই প্রকল্পগুলিতে সোলার প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে।

    LEAVE A REPLY