বজ্রপাতের পরিমাণ বাড়ায় বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছে কলকাতা পুরসভা

    0
    270

    খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক : ‌ক্রিকেট অনুশীলনের সময় বিবেকানন্দ পার্কে বাজ পরে মৃত্যু হয় তরুণ ক্রিকেটারের। রবিবারের সেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় সেই কারণে কলকাতা মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের  (‌কেএমসি)‌ পক্ষ থেকে প্রত্যেকটি পার্কে বসানো হবে বজ্র নিরোধক ব্যবস্থা। যাতে প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময়ও পার্কগুলি সুরক্ষিত থাকে। কেএমসির বিদ্যুত দপ্তর এ বিষয়ে কিছুদিনের মধ্যেই টেন্ডার চূড়ান্ত করবে বলে জানা গিয়েছে। কেএমসির এক শীর্ষ অধিকর্তা বলেন, ‘‌বাজের প্রকোপ থেকে রক্ষা পেতে বিশেষ কিছু পার্কে এই ব্যবস্থা করা হবে। এই কাজটি বেশ কিছু পর্যায়ে চলবে। প্রথম পর্যায়ে দক্ষিণ কলকাতার বিবেকানন্দ পার্ক, দেশপ্রিয় পার্ক এবং ম্যাডাক্স স্কোয়ার এবং উত্তর কলকাতার দেশবন্ধু পার্কে এই বজ্র নিরোধক বসানো হবে। প্রথম পর্যায়ের পর আরও দশটি পার্কে এই ব্যবস্থা করবে কেএমসি।’‌ বজ্রবিদ্যুত সুরক্ষা ব্যবস্থা পার্ক সহ প্রতিটি আবাসন, দপ্তরে থাকা খুব প্রয়োজনীয়। বিশেষ করে সাম্প্রতিককালে ঝড়–বৃষ্টির প্রকোপ যেভাবে বেড়ে চলেছে। এ মাসেই বাজ পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন রাজ্যের ৩৩ জন মানুষ। রবিবার বিবেকানন্দ পার্কে দেবব্রত ছাড়াও আরও ১০০ জন সেই সময় অনুশীলন করছিলেন। তরুণ ক্রিকেটারের মৃত্যুর পর অনেকেই তাঁদের সন্তানদের ক্রিকেট অনুশীলনে পাঠাতে ভয় পাচ্ছেন। বৈজ্ঞানিকরা জানান, অন্য জিনিসের তুলনায় গাছ খুব সহজেই বিদ্যুত টেনে নেয়। তাই অনেকসময় গাছের নীচে দাঁড়িয়ে থাকলেও, বাজ পরে মৃত্যু হয়। কেএমসির পরিকল্পনা অনুযায়ী, গাছের ওপরেই এই বর্জ্য নিরোধক ব্যবস্থাগুলি বসানো হবে। সোলার প্যানেলের সাহায্যে এগুলি কাজ করবে। এমআইসির সদস্য দেবাশিষ কুমার বলেন, ‘‌এক–একটি পার্কে এই পদ্ধতি বসাতে খরচ হচ্ছে ৫০ হাজার টাকা করে। বেশ কিছু পার্কে আগেও এই ব্যবস্থা করা হয়েছিল, কিন্তু তামার প্লেট হওয়ায় তা চুরি হয়ে যায়। একমাত্র দেশপ্রিয় পার্কে বর্জ্র নিরোধর ব্যবস্থাটি অক্ষত রয়েছে। তাই এ ক্ষেত্রে পার্কে সিসি ক্যামেরাও বসানো হবে। যাতে নজরদারি চালানো যায়।’‌

    LEAVE A REPLY