গ্রেফতার ক্রিকেট জুয়াড়ী
  • 12547 Views
  • 3 months ago
  • খোঁজখবর

খোঁজখবর,ওয়েব ডেস্ক :  আইপিএল ম্যাচ চলাকালীনই ইডেন থেকে ক্রিকেট জুয়াড়িদের হাতেনাতে পাকড়াও গুন্ডাদমন শাখার অফিসারদের।

১৯ এপ্রিল। কেকেআর এবং আরসিবির ম্যাচ চলছে ইডেন গার্ডেনসে। ব্যাট হাতে ইডেন মাতাচ্ছেন বিরাট কোহলি। তখনই গোপন সোর্স মারফত খবর আসে কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা দপ্তরে। আইপিএলের ম্যাচ চলাকালীন একটি বেটিং-চক্র নাকি সক্রিয় হয়ে উঠেছে স্টেডিয়ামের ভিতর থেকেই।খবর পেয়েই দ্রুত ইডেনে পৌঁছয় কলকাতা পুলিশের গুণ্ডাদমন শাখার বিশেষ টিম। মাঠে তখন প্রায় ৬০,০০০ দর্শক। তাদের ভিতর থেকে বেটিং-এ জড়িতদের খুঁজে বের করা অসম্ভব কঠিন। সোর্স জানিয়েছিল, ক্রিকেট-জুয়ার কারবারিরা খুব সম্ভবত ইডেনের হাইকোর্ট প্রান্ত থেকেই নিয়ন্ত্রণ করছে গোটা ব্যাপারটা। এর বেশি আর কোনও তথ্য ছিল না তদন্তকারী অফিসারদের কাছে।যুদ্ধকালীন তৎপরতায় নজরদারি শুরু হয় ব্লকে ব্লকে। কিছুক্ষণের মধ্যেই এফ-১ ব্লক থেকে ৭জন সন্দেহভাজনকে চিহ্নিত করেন তদন্তকারী অফিসারেরা। হাতে স্মার্টফোন। ক্রমাগত ফোন করছে। প্রতিটি বলের পর চলছে দর কষাকষি।ম্যাচের মাঝপথেই আটক করা হয় ৭ জনকে। তল্লাশিতে তাদের জিম্মা থেকে উদ্ধার হয় ১৪টি স্মার্ট ফোন, একটি ব্লু টুথ কি-বোর্ড এবং প্রচুর নগদ টাকা। স্মার্টফোনগুলিতে একাধিক অনলাইন বেটিং-এর অ্যাপ। মাচের গতিবিধি অনুযায়ী সেখানে বাজি ধরা চলছে। হাতেনাতে ধরা পড়ার পর অপরাধ স্বীকার করে নেওয়া ছাড়া কোনও উপায় ছিল না ওই ৭ অভিযুক্তের।জেরায় তাদের অন্য শাগরেদদেরও সন্ধান দেয় ধৃতরা। তাদের দেওয়া তথ্যের ওপর ভিত্তি করেই গোটা রাত জুড়ে তল্লাশি চালানো হয় কলকাতার নানা প্রান্তে। গ্রেপ্তার হয় ক্রিকেট জুয়ার সঙ্গে জড়িত আরও ৭ জন। বাজেয়াপ্ত হয় ১০টি স্মার্টফোন।ধৃতরা সবাই হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র এবং রাজস্থানের বাসিন্দা। গোটা ভারতবর্ষ জুড়েই সক্রিয় ক্রিকেট বেটিং-চক্রের চাঁই এরা। কেউ কেউ অবশ্য আন্তর্জাতিক বেটিং-চক্রের সঙ্গেও যুক্ত। ম্যাচ চলাকালীন জুয়ার আসর বসত অনলাইনে। টাকা লেনদেনের প্রায় গোটা কারবারটাও চলত মূলত নানা অনলাইন অ্যাপের মাধ্যমেই।