গরমে সুস্থ থাকতে কি কি খাবেন !

খোঁজখবর ওয়েবডেস্ক ঃ  গরম প্রায় এসে গেছে বললেই চলে। মানবদেহের পুষ্টি চাহিদা সম্পর্কে প্রতিটি মৌসুমে সজাগ দৃষ্টি রাখা একান্ত কর্তব্য। আর গ্রীষ্মের গরমে এ কর্তব্য আরো বেড়ে যায়। উচ্চ তাপমাত্রায় আমাদের খাবার গ্রহণের ব্যাপারে সচেতনতা বাড়াতে হবে। আমাদের পরিষ্কার ধারণা নিতে হবে যে, কোন খাবার গরমে খাদ্য তালিকা থেকে কমিয়ে দিতে হবে অথবা কোন খাবার একেবারেই খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিতে হবে।

 

প্রচণ্ড গরম আর তাপদাহে, অনবরত ঘামের কারণে আমাদের শরীরে জল শূন্যতা দেখা দেয়। আর জলশূন্যতার কারণে দেখা দেয় নানা রকম স্বাস্থ্যগত সমস্যা। তাই গরমে সুস্থ থাকতে এবং স্বস্তিতে থাকতে খাবার তালিকায় কিছু খাবার যোগ করা যেতে পারে। যেমন, মৌসুমী ফলমূল, ডাবের জল, শসা, দই, লেবুর সরবত ইত্যাদি। গরমের কারণে খুব দ্রুত রান্না করা খাবার নষ্ট হয়ে যায়। সুতরাং খাবার খাওয়ার আগে নিশ্চিত হতে হবে যাতে খাবারটা নষ্ট না হয়।

সকালের খাবারঃ  সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে জল পান করা স্বাস্থ্যের পক্ষে উত্তম। এই মৌসুমে প্রচুর ফলমূল পাওয়া যায়, যেমন আম, জাম, কাঁঠাল, লিচু।খাবারে রাখুন কলা চিড়ে, আম চিড়ে, দই চিড়ে। গরমের সময় দই অনেক স্বস্তিদায়ক। তাছাড়া  ঠাণ্ডা দুধও খাওয়া যেতে পারে।

দুপুরের খাবারঃ গরমের সময় যতটা সম্ভব ভারী এবং তৈলাক্ত খাবার এড়িয়ে চলতে হবে। খুব সহজে হজম হয় এই রকম খাবার খাওয়া উচিৎ। মোটা এবং তেলযুক্ত মাংস, বিরিয়ানি, এবং ভাজাপোড়া খাবার পরিত্যাগ করতে হবে। দুপুরের খাবারে ভাতের সাথে শাকসবজি, ছোট মাছ, মুরগীর মাংস, এবং সালাদ খাওয়া যেতে পারে। কম তেলে খাবার খেয়ে আপনি সুস্থ বোধ করবেন, হিট স্ট্রোকের ঝুঁকি কমবে।

রাতের খাবারঃ রাতে খাবার খাওয়ার পরে যেহেতু আমাদের আর তেমন কায়িক পরিশ্রম হয় না সেহেতু রাতের বেলাও হালকা খাবার খাওয়া উচিৎ। গরমের সময় রাতের খাবার নির্বাচন করার সময় অবশ্যই যেসব খাবারে জলীয় উপাদান বেশি সেই সব খাবার নির্বাচন করা উচিত। ভাত, রুটি, মাছ, ডাল, সবজি আর সালাদ হতে পারে গরমের দিনে রাতের উপযুক্ত খাবার তালিকা। বিরিয়ানি বা ফাস্ট ফুড না খেয়ে সালাদ এবং মৌসুমী ফল বেশি করে খেতে হবে।