কর্ণাটকে নাটকীয় শপথগ্রহন বিজেপির ইয়েদুরাপ্পার,বিক্ষোভ কংগ্রেস-জেডিএসের

    0
    57
    ফাইল চিত্র

    খোঁজখবর ওয়েব ডেস্ক : গভীর রাত থেকে ভোর পর্যন্ত নাটকীয় মোড়ে রাজ্যপালের ডাকে সাড়া দিয়ে কর্নাটকে সরকার গড়ল বিজেপি। কংগ্রেস-জেডিএস একে-অপরের হাত ধরেও খুব একটা সুবিধা করতে পারল না। বৃহস্পতিবারই কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন বিএস ইয়েদুরাপ্পা। রাজ্যপাল বাজুভাই বালার উপস্থিতিতে রাজভবনে শপথবাক্য পাঠ করে কর্নাটকের দায়িত্ব নিলেন ইয়েদুরাপ্পা। মুখ্যমন্ত্রীর শপথ নেওয়ার সময় বেঙ্গালুরুতে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস এবং জেডিএসের নেতারা। বুধবার রাতেই কংগ্রেস-জেডিএস রাজ্যপালের আদেশের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন তাঁরা। মাঝরাতেই এই মামলা শুনতে বসে সুপ্রিম কোর্ট। তবে মুখ্যমন্ত্রী শপথের পর ইয়েদুরাপ্পাকে নিজের সংখ্যা গরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে হবে বলে শীর্ষ আদালত রায় দেয়।

    কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমারের কথায়, ‘‌কংগ্রেস যদি বিক্ষোভ দেখায়, তবে তারা রাহুল গান্ধী, সোনিয়া গান্ধী এবং সিদ্দারামাইয়াকেও বিক্ষোভ দেখাতে বাধ্য। কারণ এই তিনজনই কংগ্রেস দলকে দায়িত্ব নিয়ে ছারখার করে দিয়েছেন।’‌ একদিকে যখন কংগ্রেস-জেডিএস বিক্ষোভ দেখাচ্ছে, অপরদিকে ইয়েদুরাপ্পা মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার খুশিতে রাজভবনের বাইরে বিজেপি সমর্থকরা উল্লাস করছেন। কর্নাটকে বিজেপি সরকার গড়ায় কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী টুইট করে বলেন, ‘‌কর্নাটকে বিজেপি সরকার গড়ছে বলে তারা অযৌক্তিক আবেগ দেখাচ্ছে। স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে বিজেপি সরকার গড়ার মত আসন পায়নি। কিন্তু তাও তারা সরকার গড়ছে। এটা দেশের সংবিধানকে উপহাস করা হল। বৃহস্পতিবার সকালে যখন বিজেপি নিজেদের জয়ের উত্‍সবে মগ্ন থাকবে, সেখানে এই দেশের নাগরিক গণতন্ত্রের পরাজয়ে মৌনব্রত নেবে।’‌

    বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় রাজভবনে মুখ্যমন্ত্রী পদে দায়িত্ব নেন বিএস ইয়েদুরাপ্পা। অপরদিকে বেঙ্গালুরুর বিধান সৌধের মহাত্মা গান্ধীর মূর্তির নীচে বিক্ষোভে সামিল হন কংগ্রেসের বিধায়ক এবং শীর্ষ নেতারা। ছিলেন গুলাম নবি আজাদ, অশোক গেহলোট এবং সিদ্দারামাইয়া।

     

    LEAVE A REPLY