ধামজার ফরেস্টকে ডিয়ার পার্ক করার দাবী !

    0
    153

    তপন চক্রবর্তী, উত্তর দিনাজপুর:   বন দপ্তরের উদ্যোগে ধামজার ফরেস্টকে ডিয়ার পার্ক করবার দাবি এলাকার জনগনের উত্তর দিনাজপুর জেলার কালিয়াগঞ্জ ব্লকের ফতেপুরের নিকট ধামজা গ্রামে বন দপ্তরের অধীনে পর পর দুটি বিশাল আকারের ফরেস্ট পরে থাকলেও তাকে কোন ভালো কাজে লাগানোর কোন রকম প্রচেষ্টা বন দপ্তরের কর্তৃপক্ষের নেই।এমন দুটি বিশাল আকারের বন দপ্তরের ফরেস্ট অকেজো হয়ে পড়ে আছে যে দুটি ফরেস্টের মাধ্যমে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন করা সম্ভব। অথচ বন দপ্তর কোন ভাবেই এই ফরেস্ট দুটিকে কাজে লাগাতে পারছেনা। ধামজা ফরেস্ট দেখভাল করার জন্য দুই একজন সরকারী কর্মচারী রেখে দিলেও তাদের বসে বসে মাসের বেতন নেওয়া ছাড়া কোন কাজকর্ম নেই।ফতেপুর ও ধামজা এলাকার বাসিন্দা কুলেন রায় জানান সরকারের এত বড় বিশাল বন দপ্তরের ফরেস্টে বিভিন্ন এলাকার হাজার হাজার মানুষ এই ফরেস্টে নববর্ষে পিকনিক করতে আসে অনেক অসুবিধা কে উপেক্ষা করেও।কুলেনবাবু বলেন এই দুই বিশাল ফরেস্টে যদি সরকার থেকে বন ও পর্যটন দপ্তরের মাধ্যমে ডিয়ার পার্ক জরে দেওয়া হয় তাহলে একদিকে যেমন সরকারের এই ডিয়ার পার্ক থেকে আয় হতে পারতো তেমনি ডিয়ার পার্কের সুবাদে এই অঞ্চলে প্রচুর দোকান পাঠ তৈরী হবার ফলে এই এলাকার আর্থিক উন্নয়ন দ্রুত ঘটতে পারতো।কুলেনবাবু বলেন ফতেপুর ও ধামজার মানুষ কালিযাগঞ্জের পূর্বতন বিডিওকে এ ব্যাপারে উদ্দ্যোগের কথা বললেও তিনি এ ব্যাপারে কোন উদ্দোগ গ্রহণ করেন নি।

    পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পর্যটন দপ্তর অথবা বন দপ্তর সামান্য উদ্দ্যোগ গ্রহণ করলেই ফতেপুর ও ধামজা এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন ঘটাতে পারে শুধু শুধু পরে থাকা এই দুটি ফরেস্টের মাধ্যমে।কালিয়াগঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি দীপা সরকারকে ধামজা ফরেস্টের মাধ্যমে ডিয়ার পার্ক করার চেষ্টা করার জন্য অনুরোধ করলে তিনি বলেন ধামজা ফরেস্ট নিয়ে তিনি জেলা পম। LB সাথে কথা বলবেন বলে জানান।অপরদিকে বন দপ্তরের জেলা ব্নাধিকারীক দীপর্ন ঘোষ বলেন বন দপ্তরের এই মহুর্তে ধামজা ফরেস্ট নিয়ে কোন প্রকার পরিকলনা নেই তাদের।

    LEAVE A REPLY